• মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ০৫:৪৫ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी
বার্তা বিজ্ঞপ্তি:
দৈনিক বার্তা সময়ে নিয়োগকৃত প্রতিনিধি হওয়ার আপাতত কোন সুযোগ নেই, তবে সকল সংবাদকর্মী আমাদের বার্তামেইলে সংবাদ প্রেরণ করতে পারবেন। আপনদের প্রেরিত বার্তা বাছাইক্রমে প্রকাশ করা হবে এবং প্রেরিত  সংবাদের ভিত্তিতে আপনার প্রতিনিধি  হওয়ার সুযোগ থাকবে-  ধন্যবাদ  -সম্পাদক।  বার্তা প্রেরণের মেইলঃ dainikbartasomoynews@gmail.com

এক সপ্তাহ আগে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে আছড়ে পড়া সুপার সাইক্লোন আম্পান সুন্দরবনে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

দৈনিক বার্তা সময় ডেস্ক: / ১৫৩ বার পড়া হয়েছে
প্রকাশ সময় : বৃহস্পতিবার, ২৮ মে, ২০২০

পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ ২৪ পরগণা আর উত্তর ২৪ পরগণা, এই দুই জেলার সুন্দরবনের সর্বনাশ হয়ে গেছে বলে বুধবার জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি।

গোটা সুন্দরবন অঞ্চল এবং তার প্রত্যন্ত এলাকায় সুন্দরবন টাইগার রিজার্ভের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের বনমন্ত্রী রাজীব ব্যানার্জিও।

একদিকে যেমন পশ্চিমবঙ্গের সুন্দরবনে হাজার হাজার গাছ ধ্বংস হয়েছে, তেমনই ভেঙ্গে গেছে বহু নদী বাঁধ, বনপ্রহরীদের শিবির বা অরণ্যের ভেতরে থাকা বন বিভাগের ছোট ছোট দপ্তর।

সুন্দরবনের কোর এরিয়ায় এখনও পৌঁছনো সম্ভব না হলেও ড্রোনের মাধ্যমে খতিয়ে দেখা হচ্ছে যে ঠিক কতটা ক্ষতি হয়েছে রয়্যাল বেঙ্গল টাইগারের চারণভূমি এবং পৃথিবীর বৃহত্তম বদ্বীপ আর ম্যানগ্রোভ অরণ্য।

রাজীব ব্যানার্জি বিবিসি বাংলাকে বলেছেন একদিকে যেমন বনদপ্তরের পরিকাঠামোর ক্ষতি হয়েছে, তেমনই ধ্বংস হয়েছে অরণ্যও। কোর এরিয়ার চারদিকে ১৩২ কিলোমিটার জুড়ে যে নাইলনের জাল দেওয়া ছিল, যাতে বনের বাঘ লোকালয়ে চলে না আসতে পারে, তা ঘূর্ণিঝড়ে সম্পূর্ণ উড়ে গেছে।

এছাড়াও জঙ্গলের ভেতরে থাকা বনদপ্তরের রেঞ্জ অফিস, বিট অফিস, রক্ষীদের শিবির, সেখানে থাকা রেডিও যোগাযোগ ব্যবস্থা, জেটিও নষ্ট হয়েছে অনেক।

সুন্দরবনের ভেতরে বহু এলাকায় নদীবাঁধ ভেঙ্গে গিয়ে পাশ্ববর্তী এলাকায় এখন লবণাক্ত জল দাঁড়িয়ে রয়েছে। সুন্দরবন লাগোয়া শত শত গ্রামে যেমন বসতবাড়ি ধ্বংস হয়েছে, তেমনই লবণাক্ত জল দাঁড়িয়ে থাকায় বোরো ধান কীভাবে চাষ করা হবে, তা নিয়েও তৈরি হয়েছে অনিশ্চয়তা।

কোর এরিয়ায় ক্যামেরা লাগানো ড্রোনের সাহায্যে বোঝা গেছে যে ঝড়ে পড়ে যাওয়া গাছের সংখ্যা বিপুল।

মিস্ ব্যানার্জি বলছেন, গাছ এবং পরিকাঠামোর ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হলেও বাঘ সহ বন্যপ্রাণীদের ক্ষতি এখনও বনদপ্তরের নজরে আসেনি।

সুন্দরবনের পরিবেশের ওপরে নজর রাখেন, এমন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অনেকদিন ধরেই বিশ্ব হেরিটেজের খ্যাতি পাওয়া সুন্দরবনের ম্যানগ্রোভ অরণ্য ধ্বংস করা হচ্ছে, নির্বিচারে জঙ্গল কেটে বসতি বানানো হচ্ছে।

মিস্ ব্যানার্জি বলেছেন এর আগে আইলার সময়ে একবার আর এবার আরও বড় ক্ষতি হল সুন্দরবনের।


এই বিভাগের আরও বার্তা

যোগাযোগ করুনঃ